বৃহস্পতিবার, ২০ জুন ২০২৪, ০৯:২৫ পূর্বাহ্ন

বারহাট্টায় কবুলিয়তমূলে মালিককে জোরপূর্বক উচ্ছেদ

রিপোর্টারের নাম:
  • আপডেট : শনিবার, ১৩ আগস্ট, ২০২২
  • ২৮৪ পঠিত

বারহাট্টা প্রতিনিধি ঃ নেত্রকোণার বারহাট্টায় ডিক্রিপ্রাপ্ত ভ‚মি থেকে জোরপূর্বক উচ্ছেদের ঘটনা ঘটেছে। এ ঘটনাটি ঘটেছে উপজেলার সাহতা ইউনিয়নে গোপালপুর গ্রামে। সাহতা ইউনিয়নের গোপালপুর মৌজায় জেএল নং- ৪৪২, খতিয়ান ০১, বিআরএস দাগে ৩৭ শতাংশ ভূমি জমিদার ব্রজেন্দ্র কিশোর রায় চৌধুরী বকেয়া খাজনা পরিশোধ না করায় নালিশী ভূমি ভারত সম্রাট অনুকুলে নিলাম হওয়ায় বি.আর.এস রেকর্ডে সরকারের খাস ১নং খতিয়ানে লিপিবদ্ধ ও প্রকাশিত হয়। পরে গোপালপুর গ্রামের মাওঃ আঃ বারেক গংরা এলাকায় হত দরিদ্র ও অসহায় পরিবার হিসেবে সরকার বাহাদুরের নিকট হতে কবুলিয়ত দলিল মূলে মালিক হন।,

পরে নিজেদের নামে ৫০২ খতিয়ানে নামজারী করে সরকারের রাজস্ব সেরেস্তায় খাজনাদি পরিশোধমূলে উক্ত জমিতে তারা মাছ চাষ ও পুকুর পাড়ে বিভিন্ন জাতের ফলজ, বনজ, গাছ-গাছরা লাগিয়ে প্রায় ১২ বছরের উর্দ্ধকাল যাবৎ ভোগ তছরূপ করে আসলেও সাহতা ইউনিয়নের গোপালপুর গ্রামের মৃত কুবেদ আলীর ছেলে গিয়াস উদ্দিন, গিয়াস উদ্দিনের ছেলে রবিন মিয়া, আঃ জলিলের ছেলে নূর নবীগংরা বেদখল করে ও মামলা দায়ের করে।,

পরবর্তীতে মাওঃ আব্দুল বারেক গংরা মামলায় ডিক্রিপ্রাপ্ত হলে সরকারের ডিগ্রী অনুযায়ী বারহাট্টা থানা পুলিশ ও এলাকার গণ্যমান্য ব্যক্তিবর্গ সরকারী নির্দেশ মোতাবেক ঢুলিতে ঢোল মহরত পূর্বক সর্বসাধারণকে একত্রিত করে বাঁশের ঝান্ডা প্রতিস্থাপন পূর্বক মাওঃ আব্দুল বারেক গংদের এ জায়গা বুঝিয়ে দেয়া হয়। বুঝিয়ে দেয়ার পর কুবেদ আলী গংরা পুনরায় আবার তাদেরকে উক্ত জায়গা থেকে উচ্ছেদ করে দেয়। এলাকার গণ্যমান্য ব্যক্তি ও আওয়ামীলীগ নেতা মোঃ সোনা মিয়া জানান, সরকারি নির্দেশনা অমান্য করে মাওঃ আব্দুল বারেক গংদের ডিক্রিপ্রাপ্ত জায়গা থেকে জোর পূর্বক উচ্ছেদ করা হয়েছে।

 

শেয়ার করুন:

এ জাতীয় আরও সংবাদ

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

এক ক্লিকে বিভাগের খবর

© All rights reserved © 2021 dainikjananetra
কারিগরি সহযোগিতায় পূর্বকন্ঠ আইটি